সোমবার, রাত ১:১৭, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি
ভোলা ট্রিবিউনের পক্ষ হতে সকলকে জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।
জাতীয় | আন্তর্জাতিক | ভোলা সদর | দৌলতখান | বোরহানউদ্দিন | লালমোহন | তজুমুদ্দিন | চরফ্যাশন | মনপুরা | ভোলার ইতিহাস ঐতিহ্য | বিশেষ সাক্ষাৎকার | প্রবাসীদের কথা | পাঠক কলাম |

২২ বছর পর হারানো ছেলে নূরনবীকে ফিরে পেয়ে, আত্মহারা বাবা কাসেম

আপডেট : আগস্ট, ৮, ২০২১, ৯:১১ অপরাহ্ণ

:

শিমুল চৌধুরী:
হারিয়ে যাওয়া ছেলে নূরনবীকে প্রায় ২২ বছর পর ফিরে পেয়ে আত্মহারা হয়ে উঠেছেন বাবা কাসেম হালদার।
এদিকে ৫ বছরের শিশু নূরনবী ২২ বছর পর নিজ গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি নূরনবীর স্বজনদের মধ্যে বইছে আনন্দের বন্যা। এ সময় এক হৃদয় বিদারক ঘটনার অবতারণা হয়।
নূরনবীর বাবা কাসেম হালদার জানান, প্রায় ২৭ বছর আগে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুতুবা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ছাগলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তার ছেলে নূরনবী। জম্মের ৭ দিন পরে মা পারুল পারিবারিক ঝামেলার কারণে নূরনবীকে রেখে অন্যত্র চলে যায়। এতে মায়ের স্নেহ ও ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত হয় নূরনবী। সে একপর্যায়ে  দাদীর আদর যত্ন ও ভালবাসায় বড় হতে থাকে। কিন্তু সেই আদর যত্নও তার বেশিদিন টিকেনি। ৫ বছর বয়সে হঠাৎ একদিন দাদী তাকে পাটের শাক আনতে বলেন, কিন্তু তিনি পাটের শাক না এনে খেলতে যায়। সে সময় খেলতে গিয়ে হাতে ব্যথা পায় নূরনবী। এ কথা বাসায় এসে বললে দাদী তাকে উল্টো মারধর করেন। দাদীর এমন আচরণে মন খারাপ হয়ে যায় নূরনবীর। সে তখন বাড়ি থেকে বের হয়ে পালিয়ে যায়। বিকেলে বোরহানউদ্দিন খেয়াঘাট (লঞ্চঘাট) থেকে সে কোকো লঞ্চে উঠে। পরদিন সকালে ঢাকার সদরঘাটে এসে পৌঁছে। তখন নূরনবী বোরহানউদ্দিনের কোকো লঞ্চ ভেবে আবার ফিরে বহু লঞ্চের ভীড়ে ভুলবশত শরীয়তপুরের একটি লঞ্চে উঠে। পরে লঞ্চঘাটে ভিড়লে সে বুঝতে পারে যে ভুল লঞ্চে উঠেছিল। তখন লঞ্চেই কাঁদতে থাকে ৫ বছরের শিশু নূরনবী। নূরনবীর বাবা কাসেম বলেন, সে সময় এক ভদ্রলোক নূরনবীর কান্না থামাতে তার বাড়িতে ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু নূরনবী পুরো ঠিকানা বলতে না পারায় তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি। পরে ওই ভদ্রলোক অন্য এক ব্যক্তির কাছে নূরনবীকে হস্তান্তর করেন। সেখানে তিনি সে পরিবারের সাথে দীর্ঘ কয়েক বছর কৃষিকাজ করলেও তার কোনো ভিন্ন পরিচয় বা আর্থিক কোনো উন্নতি হয়নি। নিজের জন্য কিছু করতে পারেনি বলে মনে হলে ৭-৮ বছর আগে ফের ঢাকায় চলে আসে নূরনবী। এরই মধ্যে তিনি শরিয়তপুরের এক মেয়েকে বিয়ে করেন। বর্তমানে নূরনবী দুই কন্যা সন্তানের জনক।
ঢাকায় এসে নিজেই এক জায়গায় কথা বলে দর্জির কাজ শুরু করেন। কাজের সুবাদে ঢাকায় একটি ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করেন নূরনবী। একপর্যায়ে তার হারিয়ে যাওয়ার ঘটনা অনেকেই জানতে পায়।
এদিকে, নূরনবী যে বাসায় ভাড়া থাকতেন তার বোনের এক ছেলে প্রবাসী থাকতেন। তিনি একদিন নূবনবীকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম গণমাধ্যমের আর জে কিবরিয়ার জনপ্রিয় অনুষ্ঠান “আপন ঠিকানায়” যেতে বলেন। তার কথা মতো নূরনবী “আপন ঠিকানা” অনুষ্ঠানের সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেন। এরপর তিনি স্টুডিওতে আসলে তার রেকর্ড শেষে বরাবরের মতো ভিডিওটি আর জে কিবরিয়ার ফেসবুক পেইজে শেয়ার করলে নূরনবীর এলাকার মিরাজ নামের এক যুবক কমেন্টে লিখেন উনি আমার এলাকার হতে পারে।
এমন কমেন্ট দেখে গাজীপুরের ব্যবসায়ী এবং বর্তমানে “স্টুডিও অব ক্রিয়েটিভ আর্টস লিমিটেড” এর স্বেচ্ছাসেবী আবদুল জলিল সেই মিরাজের সাথে যোগাযোগ করে নূরনবীর পরিবারের খোঁজ নেওয়ার অনুরোধ জানান। স্বেচ্ছাসেবী জলিলের কথামতো তিনি কাজ করতে শুরু করেন। হারিয়ে যাওয়া ছেলের সন্ধান পেয়ে নূরনবীর বাবা কাসেম হাওলাদার চলমান লকডাউনের মধ্যেও ঢাকায় আর জে কিবরিয়া’র সেই স্টুডিওতে হাজির হন। সেখানে প্রায় ২২ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ছেলের সাথে বাবার মিলন হয়। ছেলেকে নিয়ে এলাকায় ফিরে আসেন বাবা কাসেম হালদার।
কাসেম হালদার বলেন, ছেলে হারিয়ে যাওয়ার পর আমি ছেলেকে প্রায় ১০ বছর ধরে পাগলের মতো খুঁজেছি। ছেলেকে খুঁজতে ঢাকা গেছি বহুবার। ঢাকার মোহাম্মদপুর, মূরপুর, যাত্রাবাড়ীসহ বহু জায়গায় বহু টাকা খরচ করে খোঁজাখুঁজির পরেও ছেলেকে আর পাইনি। তিনি আরও বলেন, ছেলেকে খুঁজতে গিয়ে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারও হয়েছিলাম।
এ ব্যাপারে বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুতুবা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোঃ হুমায়ুন গোলদার রবিবার সকালে বলেন, আমার এলাকার হালদার বাড়ির রিকশা চালক কাসেম হালদারের ছেলে নূরনবী ৫-৬ বছর বয়সে তার দাদির সাথে রাগ করে বাড়ি পালিয়ে যায়। কোকো লঞ্চে উঠে ঢাকা গিয়ে হারিয়ে যায়।
নূরনবী হারিয়ে যাওয়ার পর তার বাবা কাসেম বহু টাকা খরচ করে পাগলের মতো খুঁজেছে। পরে কয়েক দিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেলের খোঁজ পেয়ে ছেলেকে নিয়ে এলাকায় আসে কাসেম। তিনি আরও বলেন, কাসেমের হারিয়ে যাওয়া ছেলে খুঁজে পাওয়ায় আমরাও আনন্দিত।
আর জে কিবরিয়া বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্য আমার ফেসবুক পেইজে “আপন ঠিকানা” যারা হারিয়ে যায় তাদের ভিডিও ধারণ করে প্রচারের মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া স্বজনদের ফিরে পেতে সাহায্য করে। ঠিক সেভাবেই ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার রিকশা চালক কাসেম তার হারিয়ে যাওয়া ছেলে নূরনবীকে ২২ বছর পর ফিরে পেয়েছে।
খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে কুতুবা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান জোবায়েদ মিয়া বলেন, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ছাগলা গ্রামের কাসেম হালদার তার হারিয়ে যাওয়া ছেলে নুরনবী, তার স্ত্রী ও তাদের ২ মেয়েকে নিয়ে শুক্রবার এলাকায় এসেছে।

আপনার মন্তব্য এই বক্সে লিখুন

উপদেষ্টা: মো.নকীব তালুকদার
উপদেষ্টা সম্পাদক: আবুল কালাম আজাদ,সাংগঠনিক সম্পাদক,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ) ঢাকা।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-মো.জাহিদুল ইসলাম দুলাল,সভাপতি লালমোহন জার্নালিষ্ট ফোরাম,ভোলা।
সম্পাদক: মো.শিমুল চৌধুরী
প্রকাশক:আরিফুর রহমান(রাহাত)
অফিস: ৭২৪,১ম তলা প্রেসক্লাব ভবন,ভোলা।
লালমোহন অফিস: ১২ নং ওয়ার্ড লালমোহন পৌরসভা,ভোলা।
বার্তা কক্ষ ই-মেইল: [email protected]
মোবাইল: ০১৭১৫-২৬১৬৪৫

প্রতিষ্ঠাতা: মোঃ মহির উদ্দিন (মাহিম)

কারিগরি সহায়তা: Next Tech

শিরোনাম :
★★ সন্তানকে ফিরে পেতে অসহায় মায়ের সংবাদ সম্মেলন ★★ চিত্রশিল্পীদের সম্মানে থিয়েটার সংলাপ এর নাটক শিল্পী মঞ্চস্থ ★★ লেখা আহ্বান ★★ তজুমদ্দিনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন কোহিনুর বেগম ★★ ময়মনসিংহে অনলাইনে রঙ্গভূমি থিয়েটার মঞ্চস্থ করলো নাটক সময়ের সংলাপ ★★ ভোলায়, আরও কমল করোনা শনাক্তের হার ★★ ভোলায়, মাদকসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ★★ এমপি শাওনের সুস্থতা কামনায় লালমোহন পৌর ছাত্রলীগের দোয়া মাহফিল ★★ ভোলায় স্কুল খুললেও বাল্যবিয়ের শিকার অনেক শিক্ষার্থী ক্লাসে অনুপস্থিত ★★ এমপি শাওনের সুস্থতা কামনায় হুমায়ুন মিয়ার পক্ষ থেকে দোয়া মাহফিল