সোমবার, সন্ধ্যা ৭:০৭, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি
ভোলা ট্রিবিউনের পক্ষ হতে সকলকে জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।
জাতীয় | আন্তর্জাতিক | ভোলা সদর | দৌলতখান | বোরহানউদ্দিন | লালমোহন | তজুমুদ্দিন | চরফ্যাশন | মনপুরা | ভোলার ইতিহাস ঐতিহ্য | বিশেষ সাক্ষাৎকার | প্রবাসীদের কথা | পাঠক কলাম |

প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা বিতরণে নয় ছয়ঃভোলায় সাংবাদিকদের ক্ষোভ ও সমালোচনার ঝড়!

আপডেট : অক্টোবর, ২১, ২০২০, ৬:১৪ অপরাহ্ণ

:

ভোলা সংবাদাতাঃ ভোলায় সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর প্রনোদনা বিতরনে অনিয়ম, প্রকৃত সাংবাদিক বাদ পড়ায় ক্ষোভ ও সমালোচনার ঝড় বইছে!
করোনা কালিন সময়ে সারাদেশে সাংবাদিকদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে বিশেষ প্রনোদনা দেয়া হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় গত সোমবার ১৯ অক্টোবর ভোলায়ও কতিপয় সাংবাদিকদের মাঝে ওই প্রনোদনার চেক বিতরণ করা হয়। এটা প্রকাশ হওয়ার পরপরই ব্যাপক আলোচনা আর সমালোচনার জন্ম দেয়। বিশেষ করে কারা এ তালিকা করেছে, কাদেরকেই বা তালিকায় রাখা হয়েছে এটা এখন আলোচনার প্রধান বিষয়। তালিকা যারাই করেছেন তারা কি ভোলার সকল উপজেলায় কর্মরত পেশাদারদের নিয়ে তালিকা করেছেন, নাকি তাদের পছন্দ অনুযায়ী অর্থাৎ যারা তাদেরকে (তালিকা প্রনয়নকারীদের) ম্যানেজ মারতে পেরেছেন সেসব লোকদেরকে তালিকায় স্থান দিয়েছেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে যারা এ তালিকা করেছেন সেখানে কতজন পেশাদার সাংবাদিক রয়েছেন ? ভোলার একটি পত্রিকা ব্যাতিত প্রকাশিত অন্য ৩টি দৈনিক পত্রিকার কর্তৃপক্ষের কাউকে পর্যন্ত জানানো হয়নি। বিষয়টি এখন ভোলার টকা অব দ্যা জেলায় পরিণত হয়েছে।
অনুসন্ধানে দেখা গেছে সেই তালিকায় পেশাদার সাংবাদিক নয় এমন লোকও রয়েছে। আছে হোন্ডার ড্রাইভার এমনকি একজন টিভি রিপোর্টারের ৩-৪ জন ক্যামেরা পার্সন। প্রশ্ন উঠাই স্বাভাবিক একজন টিভি রিপোর্টারের কতজন ক্যামেরা পার্সন প্রয়োজন ? ভোলা জেলায় ৩ থেকে ৪শত কয়েকশত পেশাদার সাংবাদিক রয়েছেন, অথচ প্রনোদনা পেয়েছে মাত্র ৭৫ জন। এদের মধ্যে পেশাদারের চেয়ে অপেশাদার সাংবাদিক-ই বেশি। এ তালিকায় পেশাদার সাংবাদিকদের নাম না আসায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। সাথে সাথে ঘৃনাও প্রকাশ করছেন যারা এ তালিকা তৈরী করেছেন। এ নিয়ে ভোলার সকল উপজেলার কর্মরত পেশাদার সাংবাদিকরা সোস্যাল মিডিয়ায় নানা ধরনের স্ট্যাটাসও দিয়েছেন। তাতে ধুয়ে দিচ্ছেন ওই একচোখা ও স্বার্থান্বেশী মহলকে, যারা তালিকা তৈরী করেছেন।
ক্ষোভের সাথে একাধিক পেশাদার সাংবাদিকগণ জানান, যখন তালিকা করা হয়েছে, তখন বর্তমানে ভোলা প্রেসক্লাবের দায়িত্বে যারা রয়েছেন তারা আমাদেরকে জানায়নি। এটা তারা অন্যায় করেছে। তারা শুধু তাদেরকেই জানিয়েছেন, যারা তাদের তোষামদি করতে পারবে, চামচামি করতে পারবে এমন লোকদেরকে। শুধু তাই নয়, ওই তালিকায় এমন লোকেও স্থান মিলেছে যারা পেশাদার সাংবাদিক নন। এমন স্বজনপ্রীতি ও নিন্দনীয় কাজ করার জন্য আমরা তাদেরকে ধিক্কার জানাই। আমরা এমন স্ব-ঘোষিত কমিটি চাইনা, যারা পেশাদার সাংবাদিকদের মুল্যায়ন করতে জানেনা।
বিভিন্ন উপজেলার একধিক পেশাদার সাংবাদিক ক্ষোভের সাথে জানান, ভোলায় বসে যারা তালিকা করেছেন তারা আমাদের উপজেলার কাউকে একবারের জন্যও বিষয়টি জানায়নি। তাদের এ মনগড়া কার্যক্রমের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।
ভোলার সংবাদ এর সম্পাদক মো. ফরহাদ হোসেন বলেন, করোনা কালীন ভোলা জেলার সাংবাদিকদের মাঝে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে প্রণোদনার যে চেক বিতরণ করা হয়েছে তা নিয়ে জেলা ও উপজেলার সাংবাদিকদের কাছে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ও প্রশ্নবৃদ্ধ? কখন এ-ই তালিকা করার নির্দেশ আসলো ? কারা এই তালিকা প্রনয়ণে তরি গরি করে জমা দিলেন তা অনেক পেশাদার সাংবাদিকদের অজানা। আবার তালিকাতেও নাকি স্বজন প্রীতি করার কারণে বহু পেশাদার সাংবাদিক, সরকার দলীয় সমর্থক অনেক সাংবাদিক ও করোনা আক্রান্তসহ অস্বচ্ছ সংবাদকর্মীরাও বাদ পড়েছেন। এটা খুব দুঃখ জনক। যা  ভোলার সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এর কাছে জেলার পেশাদার সাংবাদিকরা এমনটা আশা করেনি।
ভোলা জেলা অনলাইন প্রেসক্লাব সভাপতি তুহিন খন্দকার জানান, আমার অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য ক করোনা দুর্যোগে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে সংবাদ সংগ্রহের কাজ করেছে। সরকারের প্রণোদনা থেকে কেন আমাদের সংগঠনের সদস্যদের প্রনোদনার টাকা থেকে বঞ্চিত করা হলো। কারা এই তালিকা করলো, কোন ক্যাটাগরিতে তালিকা করা হলো, তা আমরা কিছুই জানতে পারিনি।
দৈনিক ভোলা টাইমস পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ বলেন, প্রেসক্লাব থেকে আমাকে বা আমার পত্রিকার কাউকেই বলা হয়নি। তবে উচিত ছিলো পেশাদার সাংবাদিক বা অসহায় সাংবাদিককে প্রণোদনার টাকা দেওয়া।
ভোলার অপর দৈনিক পত্রিকা ভোলার বাণীর সম্পাদক মুহা: মাকসুদুর রহমান বলেন, আমাকে একবারের জন্যও বলেনি, বল্লে হয়ত আমার পত্রিকার কিছু পেশাদার সাংবাদিকের নাম প্রস্তাব করতাম। আমি চাই যেসকল পেশাদার সাংবাদিকরা বাদ পরেছে তাদের নামে প্রস্তাব পাঠানো।
করোনাকালিন সময়ে ভোলা সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদান রাখায় চ্যানেল কিউ ২৪ ক্রেষ্ট প্রাপ্ত এ,কে এম গিয়াসউদ্দিন জেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি জানান প্রণোদনা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে কি শর্ত রয়েছে? এ প্রনোদনায় বাদ পড়া পেশাদারদের তালিকায়  সাংবাদিকদের দ্বিধা বিভক্ত না করে একই প্লাটফর্ম থাকার অনুরোধ করেন।পাশাপাশি সরকারের এ মহান উদ্যোগে কেউ যেন বাদ না পড়ে  সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য কর্তৃপক্ষের সু- দৃষ্টি কামনা করেছেন।

আপনার মন্তব্য এই বক্সে লিখুন

উপদেষ্টা: মো.নকীব তালুকদার
উপদেষ্টা সম্পাদক: আবুল কালাম আজাদ,সাংগঠনিক সম্পাদক,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ) ঢাকা।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-মো.জাহিদুল ইসলাম দুলাল,সভাপতি লালমোহন জার্নালিষ্ট ফোরাম,ভোলা।
সম্পাদক: মো.শিমুল চৌধুরী
প্রকাশক:আরিফুর রহমান(রাহাত)
অফিস: ৭২৪,১ম তলা প্রেসক্লাব ভবন,ভোলা।
লালমোহন অফিস: ১২ নং ওয়ার্ড লালমোহন পৌরসভা,ভোলা।
বার্তা কক্ষ ই-মেইল: [email protected]
মোবাইল: ০১৭১৫-২৬১৬৪৫

প্রতিষ্ঠাতা: মোঃ মহির উদ্দিন (মাহিম)

কারিগরি সহায়তা: AMS IT BD

শিরোনাম :
★★ জননেতা এমপি শাওনের এপিএস মিজানুর রহমানের পিতা চিরনিদ্রায় শায়িতঃ এমপি শাওনের শোক ★★ লালমোহনে জাতীয় বীমা দিবস পালিত ★★ জাটকা রক্ষায় মেঘনা ও তেঁতুলিয়ায় আজ থেকে ২ মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধ ★★ জাতীয় প্রেস ক্লাবে মোমিন মেহেদীকে লাঞ্ছিতর ঘটনায় উদ্বেগ ★★ সন্তানকে বাঁচাতে নিরবে অশ্রু ফেলছেন দিনমজুর ফারুক মিয়া ★★ বয়সের ভারে ন্যুজ, আমারে একটা কার্ড করে দেন-সমতা বিবি! ★★ ভোলায় দুই পৌরসভায় আ’লীগ প্রার্থীর বিজয় ★★ ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি’র প্রার্থীর ভোট বর্জন ★★ ভোলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দুই পৌরসভার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত ★★ লালমোহনে হাবিবুর রহমান তালুকদারের শেষ বিদায়